চার দিন ধরে টানা পানি বৃদ্ধিতে বগুড়ায় যমুনা নদীর পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে সাড়ে ৫০০ বেশি গ্রাম। সাড়ে ৮ হাজার হেক্টরের বেশি ফসল মঙ্গলবার পর্যন্ত তলিয়ে গেছে পানির নিচে। পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, আরো অন্তত ৩ দিন পানি বৃদ্ধির চলমান হার অব্যহত থাকতে পারে। তবে বন্যার কবলে পড়া তিন উপজেলার প্রায় ৮০ হাজার মানুষকে ত্রাণ সহায়তা দেওয়ার প্রস্তুতি রয়েছে বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন।

 

পানি উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছে, মঙ্গলবার সকাল ৬টার দিকে বগুড়ার মথুরাপাড়া পয়েন্টে যমুনা নদীর পানি বিপদসীমার ৯২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। গত শনিবার দুপুরে চলতি মৌসুমে বগুড়ায় প্রথম বিপদসীমা অতিক্রম করে যমুনা নদীর পানি।

 

যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধিতে বগুড়ার সারিয়াকান্দি, সোনাতলা ও ধুনট উপজেলার মোট ২৯ ইউনিয়নের মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়ছেন ক্রমেই। এ ছাড়া পাট, আউশ ধান, মরিচ, আমন বীজতলা ও বিভিন্ন সবজির ৮ হাজার ৬০৩ হেক্টর ফসলি জমি পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে। এ ছাড়া এবারের বন্যায় সারিয়াকান্দি উপজেলায় বিভিন্ন মৎস্য খামারের প্রায় ২ কোটি টাকার মাছ ভেসে গেছে।

 

বগুড়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রায়হানা ইসলাম জানান, পানি বৃদ্ধি অব্যহত থাকলেও বড় দুর্যোগের শঙ্কা এখনো নেই বন্যা ?বলিত এলাকায়। এই ৩ উপজেলাকে রক্ষায় নির্মাণ করা ৪৫ কিলোমিটার নদীতীর রক্ষা বাঁধ সুরক্ষায় সব ধরনের প্রস্তুতি রাখা হয়েছে।

 

বানভাসিদের জন্য ২ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার এবং ১৪২ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এরমধ্যে সারিয়াকান্দিতে ১০১ মেট্রিক টন, সোনাতলায় সাড়ে ২০ মেট্রিক টন ও ধুনটে সাড়ে ২০ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

 

 

সূত্র

কালেরকন্ঠ

 
 
 
 

মন্তব্য করুন

A PHP Error was encountered

Severity: Core Warning

Message: PHP Startup: Unable to load dynamic library 'imagick.so' (tried: /opt/alt/php72/usr/lib64/php/modules/imagick.so (libMagickWand-6.Q16.so.2: cannot open shared object file: No such file or directory), /opt/alt/php72/usr/lib64/php/modules/imagick.so.so (/opt/alt/php72/usr/lib64/php/modules/imagick.so.so: cannot open shared object file: No such file or directory))

Filename: Unknown

Line Number: 0

Backtrace: